নারীদেরকে অ্যাপের সাহায্যে ট্র্যাক করে সৌদি পুরুষরা

নারীদেরকে অ্যাপের সাহায্যে ট্র্যাক করে সৌদি পুরুষরা

নারীদেরকে অ্যাপের সাহায্যে ট্র্যাক করে বলে অভিযোগ উঠেছে সৌদি আরবের পুরুষদের বিরুদ্ধে। এক্ষেত্রে সহযোগিতা করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের টেকনোলজি কোম্পানি অ্যাপল ও গুগলের বিরুদ্ধেও অভিযোগ উঠেছে।

রোববার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এসব কথা জানায় যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ‘ডেইলি মেইল অনলাইন’। প্রতিবেদনটিতে বলা হয়, ‘অ্যাবশের’ নামের এই অ্যাপ গুগল প্লে এবং আইটিউনস স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে।

সৌদি সরকার নিয়ন্ত্রিত অ্যাপটি দেশটির পুরুষদেরকেও ব্যবহারের অনুমতি দেয়া হয়। নারীরা কোন বিমানবন্দর হয়ে, কোথায় ও কতদূর গেলো তা এই অ্যাপের সাহায্যে জানতে পারে অভিভাবকেরা।

মূলত অ্যাক্টিভিস্ট ও শরণার্থীদের অবস্থান জানতে সৌদি কর্তৃপক্ষের ব্যবহৃত এই অ্যাপের কারণে ভুক্তভোগী হচ্ছে দেশটির নারীরা। তারা একটি নির্দিষ্ট এলাকা পার হলেই সঙ্কেত দিয়ে জানায় অ্যাপটি।

‘অ্যাবশের’র জন্যই সৌদি নারীরা দেশ থেকে পালানোর চেষ্টা করলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ধরা পড়ে যায়। আরেকটি পেজে অভিভাবকেরা কোন কোন ‘পারমিশন’ সক্রিয় আছে তা দেখতে এবং এগুলো বদলাতে পারে।

নারী অধিকার নিয়ে ক্যাম্পেইন ও লেখালেখি করা সাবেক মুসলিম অ্যাক্টিভিস্ট ইয়াসমিন মোহাম্মেদ বলেন, দুর্ভাগ্যজনকভাবে ‘সেকেলে নারী-বিদ্বেষকে’ টিকিয়ে রাখার পথ সুগম করছে অ্যাপল ও গুগল।

পশ্চিমা দেশগুলোতে যেসব টেকনোলজি মানুষের জীবনমান উন্নয়নে ব্যবহার করা হয়, সৌদি আরবে সেসব লিঙ্গ বৈষম্য জোরদারে ব্যবহৃত হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন এই সাবেক মুসলিম নারীকর্মী।

গুগল ও অ্যাপল স্টোর থেকে ১০ লাখেরও বেশি বার ডাউনলোড করা এই অ্যাপ নিয়ে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এবং অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। এই বিষয়ে অ্যাপল ও গুগলের কোনও মন্তব্য উল্লেখ করেনি ‘ডেইলি মেইল অনলাইন’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *